যাদবপুরের কেপিসি হাসপাতলে কর্মবিরতি থাকলেও,চালু রয়েছে এমার্জেন্সি

 

মদনমোহন সামন্ত, ১৩ই জুন, কলকাতা :
নীলরতন সরকার হাসপাতালে রোগীমৃত্যু কেন্দ্র করে অবাঞ্ছিত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্যজুড়ে জুনিয়র ডাক্তাররা সব সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালের ওপিডি বিভাগে কর্মবিরতি জারি রেখেছিল। যার ফলে অনেক ক্ষেত্রেই ওপিডি শুধু নয় অন্যান্য বিভাগেও চিকিৎসা পরিষেবা বন্ধ ছিল। আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে উদ্যোগী হয়ে এসএসকেএম হাসপাতালে পৌঁছন। চিকিৎসা না পাওয়া দূর-দূরান্তের রোগীদের অপেক্ষমান পরিজনদের কাছে তারা চিকিৎসা পাচ্ছেন কিনা খোঁজ নেন। বিন্দুমাত্র চিকিৎসা পাচ্ছেন না জেনে ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী বৃহস্পতিবার বেলা দু’টোর মধ্যে জুনিয়র চিকিৎসকদের কাজে যোগ দিতে হবে বলে হুমকি দেন। তা না হলে আইনত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে কাজে যোগ দিতে অনিচ্ছুকদের হোস্টেল খালি করে দিতে বলেন। তাঁর কড়া মনোভাবে কিছুটা কাজ হলেও এনআরএস সহ অন্যান্য কয়েকটি ক্ষেত্রে বিকাল পর্যন্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়নি। কিছু কিছু ক্ষেত্রে ওপিডি বন্ধ রেখে জুনিয়র চিকিৎসকরা প্রতিবাদী পোস্টার লিখে সংবাদ পাঠানো পর্যন্ত কর্মবিরতি চালিয়ে যাচ্ছেন। মুখ্যমন্ত্রীর কড়া ব্যবস্থা সত্ত্বেও যাদবপুরের বেসরকারি কেপিসি হাসপাতাল-এ দেখা যায় বিকেলেও জুনিয়র চিকিৎসকরা হাতে পোস্টার নিয়ে কর্মবিরতি ও অবস্থান চালিয়ে যাচ্ছেন। এমারজেন্সি পরিষেবা নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জুনিয়র চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তারা কর্মবিরতি চালিয়ে যাচ্ছেন এনআরএস-এর জুনিয়র চিকিৎসকদের সমর্থনে। পাশাপাশি এমারজেন্সি পরিষেবা চালু রেখেছেন যাতে করে গুরুতর অসুস্থদের চিকিৎসার অসুবিধা না হয়।

18total visits,1visits today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *