বেগ নয়, ‘সারদার অ্যাম্বাসাডর’ উদ্বেগে বারবার ফিরে আসছে শতাব্দী’র জুলাই

 

 

মদনমোহন সামন্ত,৮ই জুলাই,কলকাতা :
জুলাই। আবারও সেই জুলাই মাস। শতাব্দী’র জুলাই যেন ফিরে ফিরে আসছে বারবার। গতবার ২০১৭র জুলাই মাসে বীরভূমের তৃণমূল কংগ্রেস শতাব্দী রায়কে সারদাকাণ্ডের তদন্তের জন্য ডেকেছিল সিবিআই। টালবাহানার পর প্রায় তিন ঘন্টা ধরে তাঁর বাড়িতে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে হয়েছিল তদন্তকারী আধিকারিকদের। আবারও সেই জুলাই মাস। তবে সালটা এবার ২০১৯। মামলাও সেই একই, সারদাকাণ্ড। লক্ষ্য এবারও সেই শতাব্দী রায়। বীরভূমেরই দ্বিতীয়বারের সাংসদ। মাঝে পেরিয়ে গিয়েছে দু’ দু’টি বছর। অবশ্য তদন্তকারী সংস্থা এবারে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট বা ইডি। একসময় শতাব্দী রায় ছিলেন সারদার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর। সংস্থার পরিচিতির প্রসারের বিনিময়ে সংস্থার সঙ্গে বড় ধরণের আর্থিক লেনদেন হয়েছিল সাংসদের। কেন এবং কত অঙ্কের সেই আর্থিক লেনদেন, তার পুঙ্খানুপুঙ্খ জানতে সাংসদকে তলব করা হয়েছে বলে খবর। ১২ জুলাই ঠিক দুপুর ১২ টায় তাঁকে হাজিরা দিতে বলা হয়েছে সল্টলেকের সিজিও কম্প্লেক্সে ইডি দফতরে। ওখানেই চিট ফান্ড সংক্রান্ত আর্থিক অনিয়মের তদন্তের কাজ হয়ে থাকে। কাকতালীয়ভাবে ওই দিনই আবার মহানগরের রাজপথে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি পদযাত্রায় অংশ নেওয়ার কর্মসূচি পূর্বনির্ধারিত রয়েছে। প্রসঙ্গত, সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচন মিটতেই সারদা-নারদা-রোজভ্যালি কাণ্ড নিয়ে সক্রিয়তা দেখা যাচ্ছে দুই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই এবং ইডি’র। তারা বিরামহীনভাবে একের পর এক প্রভাবশালীদের নোটিশ দিয়ে ডেকে পাঠাচ্ছে। সেই প্রক্রিয়ারই অঙ্গ হিসাবে এবার সারদাকাণ্ডে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ইডির তরফে ডাক পেলেন তৃণমূল কংগ্রেসের বীরভূমের দ্বিতীয় দফার সাংসদ শতাব্দী রায়।

60total visits,1visits today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *