মালদহে ভুতনি সেতু সংলগ্ন রাস্তার বেহাল দশা , বিপাকে লক্ষাধিক মানুষ

ভুতনি ব্রিজ থেকে তোলা বেহাল রাস্তার ছবি।

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, মালদহঃ দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর মালদহের ভুতনিবাসীদের দীর্ঘ দিনের সমস্যার কথা ভেবে প্রায় ১৩৫ কোটি টাকা ব্যয় করে স্বপ্নের সেতু ভুতনি ব্রিজ তৈরি করে তৃণমূল সরকার । মালদায় এসে মাস খানেক আগেই যার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী। তবে সেতু দিয়ে যাতায়াত শুরু হলেও সেতুর সাথে যোগাযোগের রাস্তা কাঁচা থেকে যায় ।

এবার বর্ষা শুরু হতেই ভুতনি সেতু সংলগ্ন রাস্তার বেহাল দশা হয়ে পড়ায় চরম দুর্দশায় পড়েছেন স্থানীয় মানুষজন। রাস্তার অবস্থা এতটাই খারাপ,যে কারনে বেশিরভাগ মোটরবাইক চালক ও সাধারণ মানুষকে  জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ফুলহার নদীতে নৌকা পারাপার করেই মানিকচক সহ জেলার বিভিন্ন জায়গায় যাতায়াত করতে হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত কয়েকদিন ধরে টানা বৃষ্টি হওয়ায় ভুতনি ব্রিজ সংলগ্ন প্রায় ৩০০ মিটার রাস্তা দিয়ে ব্রিজে ওঠা বিপ্পজনক হয়ে পড়েছে । কাঁচা মাটির উপর বৃষ্টির জল পড়ায় কাঁদায় ভরে গিয়েছে। যদিও ভুতনি বাঁধ এলাকার প্রায় লক্ষাধিক মানুষের ব্রীজে ওঠার আর কোন উপায় না থাকায় মোটর বাইক , সাইকেল  চালক সহ বিভিন্ন যানবাহন খুব কষ্টের সঙ্গেই এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করছে । বৃহস্পতিবার সকালে ভুতনি বাঁধ থেকে সেতু পর্যন্ত এই রাস্তার অবস্থা চরম খারাপ হয়ে পড়ে । ফলে মানুষ প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে ফুলহার নদীতে নৌকা দিয়ে পারাপার করতে দেখা যায় ।

ঘটনার খবর জানাজানি হতেই নড়েচড়ে বসে জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসনের নির্দেশে তড়িঘড়ি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মানিকচক ব্লক বিডিও সুরজিৎ পন্ডিত , ভুতনির জেলা পরিষদ সদস্য ডলিরানি মন্ডল ,  সহ অন্যান্য প্রশাসনিক কর্তারা। উত্তর চন্ডিপুর গ্রাম পঞ্চায়েত কে তড়িঘড়ি রাস্তা মেরামতের নির্দেশ দেওয়া হয়।

অন্যদিকে, রাস্তার এই চরম দুর্দশার খবর পেয়ে এদিন রাস্তা পরিদর্শনে যান মানিকচকের কংগ্রেস বিধায়ক মোত্তাকিন আলাম। তিনিও রাস্তার এই বেহাল দশা দেখে দ্রুত রাস্তা মেরামতির দাবি জানান।

 স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, রাজ্য সরকার এত টাকা খরচ করে ব্রিজ তৈরি করেছে অথচ সামান্য ৩০০ মিটার রাস্তাটার দিকে নজর না দেওয়ায় আমাদের এই দুর্দশার মধ্যে পড়তে হয়েছে। সামান্য বৃষ্টিতে জলকাদায় ভরে যাচ্ছে । আমাদের চলার অযোগ্য হয়ে উঠেছে । ফলে আমরা ব্রিজে সহজে উঠতে পারছিনা । ভরা জলে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নৌকাতেও পারাপার করতে হচ্ছে। আমাদের দাবি সরকার অবিলম্বে এই রাস্তা মেরামতি করে দিক।

এই বিষয়ে মালদা জেলা পরিষদের সভাধিপতি গৌরচন্দ্র মন্ডল বলেন, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভুতনির মানুষের কথা ভেবে তাদের যোগাযোগের জন্য পাকা সেতু তৈরি করে দিয়েছেন।   ব্রিজ সংলগ্ন রাস্তাটি বর্ষাতে খারাপ হয়েছে শুনেছি । আজ বিডিওকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল তিনি পরিদর্শন করেছেন । ইতিমধ্যেই গ্রাম পঞ্চায়েত কে রাস্তা মেরামতি  করার জন্য জানানো হয়েছে।   ভুতনির মানুষের জন্য রাজ্য সরকার সব সময় ভাবেন বলে গৌরাঙ্গ বাবু জানান । তিনি আরও বলেন, বাংলার সড়ক যোজনা ও উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর এর উদ্যোগে ভুতনিতে প্রায় ৪০ কিলোমিটার পাকা রাস্তার কাজ চলছে ।এত উন্নয়ন দেখেও কিছু কিছু বিরোধী দলের নেতারা এলাকায় গিয়ে নোংরা রাজনীতি করছে কিন্তু কাজ করার দিকে কোন উদ্যোগ নিচ্ছে না।