কাশ্মীরের অনন্তনাগে জঙ্গি হামলায় শহীদ সবং এর বীর সন্তান

জঙ্গিদের গুলিতে শহীদ সিআরপিএফ জওয়ান সবং-এর শ্যামল দে।

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, পশ্চিম মেদিনীপুর: লাদাখের গলওয়ানে অতর্কিত হামলা চালিয়ে বাংলার ৩ মায়ের কোল খালি করেছিল চিনা সৈন্যরা । আজ শুক্রবার কাশ্মীরের অনন্তনাগে জঙ্গিদের গুলিতে শহীদ হলেন আর এক বঙ্গসন্তান, সাথে খালি হল বাংলার আরও এক মায়ের কোল । শহীদ সিআরপিএফ জওয়ানের নাম শ্যামল দে। বাড়ি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সবং থানার সিংপুর গ্রামে।

শহীদ শ্যামল দে সিআরপিএফের ৯০ ব্যাটেলিয়নে চাকরি শুরু করেন প্রায় পাঁচ বছর হল।বাড়িতে শ্যামল বাবুর রোজগারেই সংসার চলত বলে জানান পুত্রশোকে মুহ্যমান বাবা বাদল দে।

শোকাহত শহীদ জওয়ানের বাবা বাদল দে।

তিনি আরও জানান,গত ডিসেম্বর মাসে শেষ বারের মত বাড়িতে এসে ১৫ দিন মত ছিলেন শ্যামল বাবু। তারপর থেকে প্রায় প্রত্যেক দিনই একবার করে সকালের দিকে ফোন করে খোঁজখবর নিতেন ছেলের। আজ সকালে বাড়ির একটা কাজের জন্যে কাছেই একটা জায়গায় গিয়েছিলেন কিন্ত ফিরতে একটু দেরি হলেও রোজকার মত আজও বাদল বাবু তার ছেলেকে ফোন করে ছিলেন তার খবর নিতে।

ছেলের মৃত্যুর খবরে অজ্ঞান মা।

কিন্তু দীর্ঘক্ষণ ফোন বেজে যাওয়ার পর শ্যামল বাবুর এক সহকর্মী  তার ফোন ধরেন এবং শ্যামল বাবুর মৃত্যুর খবর দেন। ছেলের মৃত্যুর সংবাদ  চেপে রাখতে পারেন নি বাবা হয়ে। পাশেই দাঁড়িয়ে ছিলেন শ্যামল বাবুর মা । তিনি ছেলের শোকে বারবার মূর্ছা যান।

বাড়িতে ভিড় জমিয়েছে গ্রামের মানুষ

সবং-এর ওই গ্রামে শহীদ জওয়ানের খবর ছড়িয়ে পড়তেই বাড়িতে ভিড় জমতে শুরু করে শোকাহত গ্রামের মানুষজন।

উল্লেখ্য, অনন্তনাগের বিজেহেরার পাড়শি বাগ এলাকায় রোজকার মতো সিআরপিএফ  জওয়ানেরা টহল দিচ্ছিলেন। সেই সময়ই কিছু জঙ্গি বাইকে করে এসে ওই টহলদারি দলকে লক্ষ্য করে সন্ত্রাসী হামলা চালায়। জবাবে, নিরাপত্তা বাহিনী গোলাগুলি ছুঁড়তে শুরু করলে পালিয়ে যায় জঙ্গিরা। তবে তারই মধ্যে জঙ্গিদের চালানো গুলিতে ঘায়েল হয়ে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় সিআরপিএফের  ৯০ ব্যাটেলিয়ানের শ্যামল দে নামে বাংলার ওই জওয়ানের। পাশাপাশি সেনা-জঙ্গি সংঘর্ষ চলাকালীন গুলিবিদ্ধ হয়ে স্থানীয় এক ১২ বছরের বালকেরও মৃত্যু হয়। এরপরেই গোটা এলাকায় লুকিয়ে থাকা জঙ্গিদের খোঁজে চিরুণি তল্লাশি চালাচ্ছে সেনা জওয়ানরা।