Shubman Gill: সিএসকে-র বিরুদ্ধে সেঞ্চুরি করা শুভমান গিলকে ব্যান করা হতে পারে!

shubh ban

গুজরাট টাইটান্সের অধিনায়ক শুভমান গিল (Shubman Gill) চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে জয়ের খুশি নিয়ে মাঠ ছারলেও একই সঙ্গে তাঁকে বড় মূল্য চোকাতে হল। আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে ম্যাচ চলাকালীন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) আচরণবিধি লঙ্ঘনের জন্য তাকে ২৪ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হল। আসলে, ম্যাচে স্লো ওভার রেটের কারণে বিসিসিআই তাঁর উপর এই জরিমানা আরোপ করেছে। প্লেয়িং ইলেভেনের অন্যান্য খেলোয়াড়দেরও ৬ লক্ষ টাকা বা ম্যাচ ফির ২৫ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছে। এই নিয়ে দ্বিতীয়বার তাঁর দল এই ভুল করল। প্লে-অফের জন্য লড়াই করা গুজরাট টাইটানস দল যদি পরের বার এই ভুল করে, তাহলে তাদের অধিনায়ককেও ব্যান করা হতে পারে।

গুজরাট টাইটানস ২০২৪ সালের আইপিএলের প্লে-অফে জায়গা পাওয়া মুশকিল হলেও খাতায় কলমে তাদের সম্ভবনা এখনও আছে। এমন পরিস্থিতিতে দলের কাছে সব ম্যাচই খুব গুরুত্বপূর্ণ, যার মধ্যে ১০ মে শুক্রবার একটি করে ম্যাচ জিতেছে। চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে ম্যাচে শতরান করেন শুভমান গিল(Shubman Gill)। কিন্তু তার পরেও তাঁকে গুণতে হবে জরিমানার ২৪ লক্ষ টাকা। ২৩২ রান ডিফেন্ড করার লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে ফিল্ডিং করতে নেমে গুজরাট দল দেখেশুনে ধীরে সুস্থে পদক্ষেপ নিচ্ছিল। সিএসকে-কে থামাতে রণনীতি তৈরি করার জন্য ভেবে-চিন্তে সময় ব্যয় করছিল। কিন্তু, সেই রণনীতির বিনিময়ে গোটা দলকে পেনাল্টির সম্মুখীন হতে হল।

এই নিয়ে দ্বিতীয়বার এই ভুল করলেন শুভমান গিল। যদি তিনি এই অপরাধের পুনরাবৃত্তি করেন তবে তাকে ৩০ লক্ষ টাকা জরিমানা এবং এক ম্যাচের জন্য ব্যান করা হবে। এছাড়াও, ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার সহ দলের প্লেয়িং ইলেভেনকে ১২ লক্ষ টাকা বা ম্যাচ ফির ৫০ শতাংশ জরিমানা দিতে হবে।

বিসিসিআই-এর নিয়ম অনুযায়ী, একটি দলকে ৯০ মিনিটের মধ্যে ২০ ওভার শেষ করতে হয়। এর মধ্যে রয়েছে আড়াই মিনিটের দুটি করে টাইম আউট। এছাড়াও, দলটিকে ডিআর্এস, ইনজুরি বা ড্রিঙ্ক ব্রেক-এর জন্য ছাড় দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। তবে, যদি কোনও দল তাদের ২০ ওভার সময়মতো শেষ করতে ব্যর্থ হয়, তবে তাদের জরিমানা করা কবলে পড়তে হয়।

যদি কোনও দল প্রথমবার এই অপরাধ করে, তাহলে অধিনায়ককে ১২ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়। একই ভুলের জন্য দ্বিতীয়বার অধিনায়ককে দিতে হবে ২৪ লক্ষ টাকা এবং প্লেয়িং ইলেভেনের অন্যান্য খেলোয়াড়দের ৬ লক্ষ টাকা বা ম্যাচ ফির ২৫ শতাংশ, যেটাই কম হোক, দিতে হবে। তৃতীয়বারের জন্য, অধিনায়ককে এক ম্যাচের নিষেধাজ্ঞার সাথে ৩০ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়, এবং প্লেয়িং ইলেভেনের অন্যান্য খেলোয়াড়দের, ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার সহ, ১২ লক্ষ টাকা বা ম্যাচ ফির ৫০ শতাংশ দিতে হয়, যেটি কম হয়।

Google news