Sports News : চাষের মাঠে ঘাম ঝরান মা-বাবা,বিশ্বকাপে ঘাম ঝরিয়ে আইকন মেয়ে

 

খবর এইসময় ডেস্ক : মহিলাদের জুনিয়র হকি বিশ্বকাপে (FIH H FIH ockey Women’s Junior World Cup)অল্পের জন্য পদক হাতছাড়া মঙ্গলবার ব্রোঞ্জ পদকের জন্য টিম ইন্ডিয়ার ম্যাচ ছিল ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে। ম্যাচের ফয়সালা হয়েছে টাই-ব্রেকারে।

দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়ে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে এগিয়ে গিয়েও হারতে হয়েছে ভারতকে। ফলে পদক হয়েছে হাতছাড়া। তবে মেডেল জিতলে ক্রীড়া প্রেমীরা অনেক দিন মনে রাখতেন এই ম্যাচ। যদিও স্কোরবোর্ড স্মরণীয় না হলেও দলের কিছু খেলোয়াড় ইতিমধ্যেই আইকন হয়ে উঠেছেন আগামী দিনের খেলোয়াড়দের কাছে। যার মধ্যে অন্যতম সঙ্গীতা কুমারী।

ঝাড়খণ্ডের সিমডেগা জেলার আদিবাসী অধ্যুষিত অখ্যাত এক গ্রাম থেকে উঠে এসেছেন সঙ্গীতা। হকির প্রতি প্রেম গ্রামবাসীদের অনেকের মনেই। অতীতে সিমডেগা থেকে জাতীয় স্তরে উঠে এসেছিলেন একাধিক তারকা,এরপর এখনকার সঙ্গীতা ফলে এই মুহূর্তে সংগীতার গ্রাম আজ অখ্যাত থেকে খ্যাত হয়ে গিয়েছে।

একুশ বছর বয়সী সঙ্গীতা বড় হয়েছেন চূড়ান্ত দারিদ্রতার সঙ্গে লড়াই করে। মা-বাবা ঘাম ঝরান চাষের মাঠে। হকি স্টিক কিনে দেওয়ার মতো সামর্থ না থাকায় সেই সময় বাঁশ দিয়েই তৈরি করে নেওয়া হতো তাদের স্টিক। কাঠের মণ্ড হতো বল। তাই নিয়েই চলতো খেলা।

ঝাড়খণ্ডে আকাশের দিকে তাকিয়ে বৃষ্টির আশায় প্রহর গুনছেন সঙ্গীতার মা বাবা। ভালো বৃষ্টি হলে ফলন ভালো হবে। তবেই পেট চলবে। অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় পদক জয়ের জন্য মেয়ের লড়াই। টেলিভিশনে ম্যাচ দেখেন সঙ্গীতার বাড়ির লোক। গ্রামবাসীরাও আশা করেছিলেন মেয়ে ঠিক পদক জিতে গ্রামে ফিরবে। কিন্তু এবারের মতো সেই আশা অবশ্য পূরণ হয়নি। তবে আন্তর্জাতিক স্তরে দাগ কেটে দিয়েছেন সঙ্গীতা ।

 

 

Google news