TMC-BJP Conflict: বালুরঘাটে সুকান্ত মজুমদারের উপস্থিতিতে টিএমসি-বিজেপি ধুন্ধুমার! দুই আইসি-কে বরখাস্ত

Sukanta Majumdar

লোকসভা নির্বাচনের দ্বিতীয় দফায় সারা দেশের ৮৯টি আসনের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের ৩টি আসনেও ভোট গ্রহণ চলছে।  দার্জিলিং, বালুরঘাট ও রায়গঞ্জ এই তিনটি আসনে সকাল থেকে শুরু হয়েছে ভোট গ্রহণ।

এদিকে, বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্র থেকে গণ্ডগোলের (TMC-BJP Conflict) খবর এসেছে। বিজেপি রাজ্য সভাপতি ও বালুরঘাটের প্রার্থী সুকান্ত মজুমদারও ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন। আসলে, বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের একটি বুথে বিশৃঙ্খলার অভিযোগের ভিত্তিতে বিজেপি প্রার্থী সেখানে পৌঁছন। এ সময় তাদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দায়ের করবেন বলে জানান তিনি।

সুকান্ত মজুমদার বালুরঘাটের একটি বুথে বিজেপি কর্মীদের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়েছিলেন। অভিযোগ, বিজেপির বুথ কর্মীদের হেনস্থা করা হচ্ছে। এরপরেই সুকান্ত মজুমদার সেখানে গিয়ে পৌঁছান। তিনি বুথে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তৃণমূল কর্মীরা ‘গো ব্যাক’ স্লোগান দেয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বালুরঘাটের পাতিরাম গার্লস স্কুলের ১০০ নম্বর বুথে তৃণমূল কর্মীরা সুকান্ত মজূমদারের চারপাশে ‘গো ব্যাক’ স্লোগান দেয়। এই বুথের ১০০ মিটারের মধ্যে তৃণমূল কর্মীরা ভোটারদের প্রভাবিত করছিল বলে অভিযোগ। বাধা দিতে গেলে বিজেপি যুব মোর্চার সাধারণ সম্পাদক জ্যোতিশ রায়কে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। খবর পেয়ে বিজেপি রাজ্য সভাপতি ও প্রার্থী সুকান্ত মজুমদার ঘটনাস্থলে পৌঁছলে তৃণমূল কর্মীরা তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে।

টিএমসির অভিযোগ, বিজেপির রাজ্য সভাপতি শান্তিপূর্ণ এলাকায় অশান্তি সৃষ্টির চেষ্টা করছেন। অন্যদিকে সুকান্ত মজুমদার অভিযোগ করেন, তৃণমূল কর্মীরা ভোটকেন্দ্রের সামনে ‘জয় বাংলা’ স্লোগান দিচ্ছিল। তারা বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করছে। অচিরেই পরিস্থিতি উত্তেজনাপূর্ণ হয়ে ওঠে এবং উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। ভোটকেন্দ্রের সামনে সংঘর্ষ বেধে যায়। বিষয়টি উত্তপ্ত হলে নিরাপত্তা রক্ষীরা পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করে।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত পুলিশ কর্মীদের সঙ্গেও তাঁর তর্কাতর্কি হয়। সুকান্ত মজুমদার বলেন, পুলিশ নিরপেক্ষভাবে কাজ করছে না। তিনি বালুরঘাটের নির্বাচন আধিকারিকের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তোলেন। সুকান্ত বলেন, বালুরঘাট আইসি অপসারণ করা উচিত। অন্যথায় রাজ্যে নিরপেক্ষ নির্বাচন হতে পারে না। তৃণমূল কংগ্রেস সকাল থেকেই বালুরঘাট পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ৩০ নম্বর বুথ নিয়ে অভিযোগ করে আসছে।

তৃণমূল অভিযোগ করেছে যে ভোটারদের অপ্রয়োজনীয়ভাবে হয়রানি ও মারধর করা হচ্ছে। অভিযোগ করা হচ্ছে যে কেন্দ্রীয় বাহিনী তাদের মারধর করছে। বালুরঘাট পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। কেন্দ্রে বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়।

টিএমসির এক্স হ্যান্ডেল বলেছে যে সুকান্ত মজূমদারের নেতৃত্বে বিজেপি গুন্ডাদের তাণ্ডবের কারণে বালুরঘাটে অস্থিরতা রয়েছে। তিনি আমাদের কর্মী ও সমর্থকদের আক্রমণ করা বন্ধ করেননি, অন্যদিকে তিনি পুলিশ আইসি-কে চাকরি হারানোর হুমকি দিয়েছিলেন। পরে তিনি বলেন, ইতিমধ্যেই দুই আইসি-কে বরখাস্ত করা হয়েছে।

Google news