“যারা আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে আন্দোলনে আসে,পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা মারে তারা সন্ত্রাসবাদী দল ” মন্ত্রী অরুপ রায়

নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়াঃ  আসন্ন ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে দলকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে মধ্য হাওড়া তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে শৈলেন মান্না স্টেডিয়ামে রবিবার এক দলীয় কর্মীসভার আয়োজন করেন অরূপ রায়।

এদিন বৃহস্পতিবারের বিজেপি যুব মোর্চার নবান্ন অভিযান প্রসঙ্গে তৃণমূলের হাওড়া সদরের চেয়ারম্যান তথা মন্ত্রী অরূপ রায় বলেন, “যারা আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে আন্দোলনে আসে, যারা পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা মারে তারা কোনও দল নয়। সন্ত্রাসবাদী দল।”  তিনি বলবিন্দরের অস্ত্র সহ গ্রেফতার এবং তার পাগড়ি বিতর্ক প্রসঙ্গে বলেন, আমার মনে হয়না তার পাগড়ি খুলে দেওয়া হয়েছে। পাগড়ি খুলে গেছে। তিনি যেই হন না কেন তার অপরাধ কেন তিনি আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে মিছিলে এসেছিলেন। একটা আন্দোলনে তার রিভলবার নিয়ে আসা উচিত হয়নি। শুধু তাই নয় রিভলভার বার করাও তার উচিত হয়নি।

যারা আন্দোলনে রিভলবার নিয়ে আসে, পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা মারে তারা সন্ত্রাসবাদী দল। রাজনৈতিক দলের আন্দোলন হয় আইন অমান্য করে, নতুবা অনশন করে। রাজনৈতিক দলের আন্দোলনে কেউ রিভলবার নিয়ে আসে না। বোমা ছোঁড়ে না।  যিনি অস্ত্র নিয়ে আন্দোলনে এসেছিলেন তাঁর পাগড়ি কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে খোলে নি। কিন্তু কেন তিনি একটা রাজনৈতিক দলের আন্দোলনে অস্ত্র নিয়ে আসবেন ? কেন সেই রিভলবার বের করবেন ? এটা সমর্থনযোগ্য নয়।

……………………Advertisement…………………….


পাগড়ি বিতর্কে একটি প্রতিনিধি দল রাজ্যপালের কাছে গিয়েছেন। এই বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে অরূপবাবু বলেন, রাজ্যপাল বকলমে ওই দলের সভাপতি হয়ে কাজ করছেন। এদিন অরূপ রায় আরও বলেন, প্রতিটি বিধানসভা কেন্দ্রে নির্দেশ আছে কর্মীসভা করার। এখানে মধ্য হাওড়ার কর্মীসভা হল। ব্লক সভাপতিদের নাম ঘোষণা হবার পর প্রতিটি ওয়ার্ডের সংগঠন মজবুত করা হবে। এদিনের রাজনৈতিক কর্মী সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সৃষ্টিধর ঘোষ, সুশোভন চট্টোপাধ্যায়, অয়ন বন্দ্যোপাধ্যায়, শেখ ইসলামউদ্দিন লালা , মৃণাল দাস সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। এছাড়াও হাওড়া জেলা পরিষদের সভাধিপতি কাবেরী দাস, সহ সভাধিপতি অজয় ভট্টাচার্য প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Google news