Mamata Banerjee: কেন্দ্রের কাছে বকেয়া ১০০ দিনের কাজের টাকা, সমস্যা মেটালেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি,পশ্চিম মেদিনীপুর : তিন দিনের জঙ্গলমহল সফরে আজ মেদিনীপুর এসেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১২টা নাগাদ মেদিনীপুরে পৌঁছান মুখ্যমন্ত্রী। এরপরই জেলা পরিষদের শহীদ প্রদ্যোত স্মৃতি ভবনে প্রশাসনিক বৈঠক করেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। বৈঠক শুরু হওয়ার আগে ভার্চুয়াল মাধ্যমে ৬৬টি প্রকল্পের শিলান্যাস এবং ১২৩টি প্রকল্পের উদ্বোধন করেন।

তারপর ১০০ দিনের কাজের টাকা না দেওয়া নিয়ে কেন্দ্রকে একহাত নেন মমতা। তিনি বলেন,”৪ মাস ধরে ১০০ দিনের কাজের টাকা দেয়নি কেন্দ্রীয় সরকার, ফলে কাজ করেও বকেয়া অর্থ পাচ্ছেন না ১০০ দিনের কর্মীরা।    এটা নিয়ে আমি চিঠিও লিখেছি। কেন্দ্রের কাছে তদ্বিরও করছি। যার জেরে গরীব মানুষরা সমস্যায় পড়েছেন। কি খাবে তাঁরা ? কিন্তু কেন্দ্র টাকা না দিলেও এই মানুষগুলোর পাওনা মেটাতে হবে।” আজ এই ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট ফান্ডের দাওয়াই দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঞ্চে বসেই ফান্ডের বিষয় নিয়ে পরিকল্পনা করতে মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদীর নেতৃত্বাধীন কমিটি তৈরির নির্দেশ দিলেন মমতা।

 

তিনি বলেন, “কয়েকটি দপ্তর রয়েছে যাদের সারাবছর কাজ চলে। তাদের কিছু প্রকল্প ১০০ দিনের কাজের মাধ্যমে করতে হবে। নতুন কাজ দেওয়ার আগে তো পুরনো টাকা মেটাতে হবে। না হলে মানুষগুলোর চলবে কীভাবে?  “একটা ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট ফান্ড তৈরি করে কাজ করতে হবে। কারণ, কাজ করার পর কাউকে টাকা দেওয়া হবে না সেটা একেবারেই ঠিক নয়। যখন কেন্দ্র দেবে তখন দেখা যাবে। এটা নিয়ে মুখ্য সচিবকে পরিকল্পনা করতে হবে।”

 এরপরই মুখ্যমন্ত্রী বলেন,  “তবে আপাতত সমস্যা মেটাতে কয়েকটি দপ্তরের বরাদ্দ অর্থের একাংশ নিয়ে তৈরি হবে ‘ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট ফান্ড’। যেমন পূর্ত, সেচ, কৃষি, পশুপালন এবং পঞ্চায়েত। দপ্তরগুলির নন-টেকনিক্যাল কাজগুলি করা হবে ১০০ দিনের প্রকল্পের মাধ্যমে। আর এই দপ্তরগুলির শ্রমিকদের জন্য বরাদ্দ অর্থ দেওয়া হবে ১০০ দিনের কাজের কর্মীদের।”

আজ এই ভাবেই গরিব মানুষগুলোর পেট ভরাতে বিকল্প ব্যবস্থার ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

Google news