কৃষক ইস্যুতে সমর্থন আদায়ে মোদীর মুখে মনমোহন

file pics.

নিউজ ডেস্ক: কৃষি আইন নিয়ে নিজের সরকারের সমর্থনে মনমোহন সিংকে উদ্ধৃত করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মনমোহনও যে কৃষিক্ষেত্রে খোলা বাজারের পক্ষে সওয়াল করেছিলেন, রাজ্যসভায় সোমবার তা জানিয়ে বিরোধীদের বেঁধেন তিনি। সেই সঙ্গে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ‘ইউ টার্ন’ নেওয়ার অভিযোগও জানান। আরও একবার কৃষকদের কাছে আলোচনায় বসার আর্জি জানান।
বাজেট অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের উপর বিতর্ক ছিল এ দিন। সেখানে মোদীর বক্তব্য, ‘আমরা কথা বলতে প্রস্তুত এবং এই অধিবেশন থেকে আপনাদের সে জন্য আহ্বান জানাচ্ছি। ন্যূনতম সহায়ক মূল্য ছিল, আছে, থাকবে। কেউ যেন ভুল তথ্য না ছড়ায়। আমাদের তো সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে, পিছনে হাঁটতে পারি না। এই সংস্কারগুলিকে একটা সুযোগ দেওয়া উচিত।’
প্রধানমন্ত্রীর অভিযোগ, কৃষক আন্দোলনের মূলগত বিষয়গুলির ব্যাপারে নীরব থাকায় বিরোধীদের বেঁধেন তিনি। পাশাপাশি দাবি করেন, ১৯৭১ থেকে গত ৫০ বছরে প্রান্তিক চাষির সংখ্যা ৫১ থেকে ৬৮ শতাংশে পৌঁছেছে। এঁদের প্রতি দেশের কোনও দায়বদ্ধতা আছে কি না, সে প্রশ্ন তুলে বিষয়টি ব্যাখ্যা করার চেষ্টা করেন মোদী।
তাঁর সরকার প্রান্তিক চাষিদের জন্য কী কী প্রকল্প নিয়েছে, তার উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রীর দাবি, সব প্রশাসনই কৃষিক্ষেত্রে সংস্কারের পক্ষে কথা বলেছে। কিন্তু তারপরে অনেক দল ‘ইউ টার্ন’ নিয়েছে। মোদীর কথায়, ‘আন্দোলন নিয়ে আপনারা (বিরোধীরা) সরকারকে আক্রমণ করছেন, ঠিক আছে। কিন্তু কৃষকদের এ কথাও বলুন যে উন্নয়নের জন্য পরিবর্তন অপরিহার্য।’ এরপরেই মনমোহনের প্রসঙ্গ টেনে বলেন, ‘আমার কথা না শুনলেও ওঁর কথা তো নিশ্চয়ই শুনবেন!’
কী কথা?
এখানে একেবারে মনমোহনকে উদ্ধৃত করেন মোদী। বলেন, ‘ভারতকে একটি বৃহৎ সাধারণ বাজার হিসাবে গড়ে তোলার পথে যাবতীয় প্রতিবন্ধকতাকে দূরে সরিয়ে রাখতে চাই আমরা — মনমোহনজি নিজেই ভারতকে একটি বৃহৎ বাজারে পরিণত করতে কৃষকদের ফ্রি মার্কেট দেওয়ার কথা বলেছিলেন।’ কংগ্রেসকে নিশানা করে তাঁর বক্তব্য, ‘মনমোহন যা নিয়ে কথা বলেছিলেন, মোদীকে সেটা করতে হচ্ছে, এ জন্য তো আপনাদের গর্বিত হওয়া উচিত!’