ফের রাজ্যে গণধোলাই! পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে বাইকে তলার চেষ্টা নাকি স্রেফ গুজব?

mob lynching

স্কুল থেকে বাড়ি ফিরছিল, সে সময়ই তার পথ আটকে দাঁড়ায় একটি বাইক। সেই বাইকের চালক ওই স্কুলছাত্রীকে ভুল বুঝিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ। তা নজরে আসতেই স্থানীয়েরা পথ আটকান। জিজ্ঞাসাবাদ করে ওই অপরিচিত যুবকের কথায় অসঙ্গতি মেলায় তাঁকে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। তার পর অভিযুক্তকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, পঞ্চম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীকে রাস্তা থেকে বাইকে করে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিল সন্দেহভাজন এক যুবক। বিষয়টি সন্দেহ হওয়ায় স্থানীয় যুবকরা অভিযুক্তকে ধরে ফেলেন। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, জিজ্ঞাসাবাদ করতেই কথায় অসঙ্গতি ধরা পড়ে অপরিচিত ওই যুবকের। এরপরেই অভিযুক্তকে গণপিটুনি দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। মারাত্মক আহত হন ওই যুবক।

পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় ক্যানিং থানার পুলিশ। অভিযুক্ত যুবকের বাড়ি নামখানা ব্লকের মন্মথনগর গ্রামে।নাম তাপস মাপা।ক্যানিংয়ের দ্বারিকানাথ বালিকা বিদ্যালয়ের ঐ ছাত্রী স্কুল শেষে বাড়ি ফিরছিল একা একা।ফাঁকা রাস্তায় তাকে একা পেয়ে অভিযুক্ত ঐ ছাত্রীকে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে।তখন বিষয়টি স্থানীয়দের চোখে পড়ে। তাঁরা কারণ জিজ্ঞাসা করলে সঠিক উত্তর দিতে পারেনি অভিযুক্ত। সেই কারণে স্থানীয় বাসিন্দারা বেধড়ক মারধর করেন অভিযুক্তকে।

যদিও অভিযুক্ত যুবকের দাবি, নাবালিকাই তাঁর কাছে সাহায্য চেয়েছিল, বাইকে কিছুটা এগিয়ে দিতে বলেছিল। সেটা করতে গিয়েই তিনি আক্রান্ত হয়েছেন। এই ঘটনায় সোমবার রাতে ক্যানিং থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন নাবালিকার বাবা। ক্যানিংয়ের এসডিপিও রামকুমার মণ্ডল বলেন, ‘‘একটা অভিযোগ দায়ের হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আমরা এক যুবককে আটক করেছি। তদন্ত চলছে।”

Google news